পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে আসল চেহারা উন্মোচিত হয়েছে

ক্ষমতা কুক্ষিগত রাখতে রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বকে জলাঞ্জলি দিয়ে বিদেশি হস্তক্ষেপ চাওয়া রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল বলে মন্তব্য করেছে গণতন্ত্র মঞ্চ। বর্তমান সরকারকে টিকিয়ে রাখা নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের দেওয়া বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে এ মন্তব্য করা হয়েছে। আজ শুক্রবার গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে এ–সংক্রান্ত একটি বিবৃতি পাঠিয়েছে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেনের বক্তব্যে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর অভিযোগ—বাংলাদেশের নির্বাচনকে প্রভাবিত করে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখতে ভারত সরকার খোলাখুলি ভূমিকা রাখছে। কিন্তু এত দিন ধরে আওয়ামী লীগ সরকার মুখে এগুলো অস্বীকার করেছে। এখন ক্ষমতা হারানোর ভয়ে নিজেদের আসল চেহারা উন্মোচিত হয়েছে বলে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য কোনো তাৎক্ষণিক মন্তব্য নয়। এই বক্তব্য সুস্পষ্টভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের বিরোধী এবং রাষ্ট্র পরিচালনার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থেকে রাষ্ট্রের স্বার্থ বিকিয়ে দেওয়ার নামান্তর।

বর্তমান সরকারের হাতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব নিরাপদ নয় দাবি করে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কী হবে, সেটা বাংলাদেশের জনগণই নির্ধারণ করবে, অন্য কোনো শক্তি নয়।

গণতান্ত্রিক-মানবিক রাষ্ট্র বিনির্মাণ এবং দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব সুরক্ষার জন্য গণজাগরণ ও গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ‘ফ্যাসিবাদী’ সরকারের পতনের জন্য গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.