ভারতের সমর্থন ছাড়া আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকতে পারছে না: মান্না

ওয়ামী লীগ ভারতের সমর্থন না পেলে ক্ষমতায় থাকতে পারছে না বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না। আজ শনিবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে নাগরিক ঐক্যে যোগদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখার জন্য ভারত সরকারকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুরোধ করা নিয়ে বক্তব্য প্রসঙ্গে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘যদি ভারতের কোনো সমর্থন ছাড়াই শেখ হাসিনা সরকার থাকতে পারে, তাহলে কেন বলেছেন ভারত সরকারকে? উনি (পররাষ্ট্রমন্ত্রী) মনে করেন, শেখ হাসিনা সরকারকে এখন রাখার জন্য ভারতের সমর্থন ছাড়া উপায় নেই।’

আমেরিকার সমর্থনও লাগবে উল্লেখ করে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘আমেরিকাকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপিকে বোঝান যেন নির্বাচনে আসে। আমেরিকার কেন বোঝাতে হবে, আপনারা নিজেরা বোঝাতে পারেন না? তাঁরা নিজেরা তো বোঝাতে পারেন না।’

মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘আমেরিকাকে বোঝানো যায়, কারণ আমেরিকা তো ইভিএমে ভোট করে। কিন্তু আমেরিকার ইভিএমে ভোট হওয়ার পর একটি স্লিপ আসে যে কাকে ভোট দিয়েছেন। কিন্তু আমাদের দেশে সেটা নেই। আমেরিকা সেটা তো বুঝবে না। তারা (আমেরিকা) বলবে, ইভিএমে ভোট হচ্ছে, কেন করে না (বিএনপি)। যাদের বোঝায়, তাদের দুর্বল জায়গা ধরার চেষ্টা করে। তার মানে আমেরিকাকে দুই নম্বর বুদ্ধিতে না বোঝালে, ভারতের সমর্থন না পেলে তারা ক্ষমতায় থাকতে পারছে না।’

এই সরকারের মৃত্যুঘণ্টা বেজে গেছে উল্লেখ করে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘এই সরকার আর বেশি দিন টিকতে পারবে না। এই সরকার যদি তার রিজার্ভ সমস্যার সমাধান করতে না পারে, জ্বালানি সমস্যার সমাধান না করতে পারে, জিনিসপত্রের দাম না কমাতে পারে, তাহলে আজ অথবা কাল যেতে তো হবে। নিজে থেকে যেতে হবে। আমরা রাস্তায় আন্দোলন যদি নাও করি, মাফ চাইতে হবে যে আমি দেশ চালাতে পারছি না। এ রকম জায়গায় যাচ্ছে।’

এত বড় সংকটে বাংলাদেশ গত ৫২ বছরে একবারও পড়েনি বলেও মন্তব্য করেন মাহমুদুর রহমান। তিনি বলেন, ‘রাস্তায় একজন মানুষ পাবেন না, যে আওয়ামী লীগের পক্ষে কোনো কথা বলে।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ কায়সার, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোমিনুল ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম এ কবির। এ ছাড়া নাগরিক ঐক্যে যোগদান করা শিক্ষক মো. আবু তাহের, প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ, ব্যবসায়ী জাকির হোসেন, আইনজীবী মো. আনোয়ার হোসেন, আইনজীবী জাকির হোসেন, প্রকৌশলী ফিরোজ হাসান ও প্রকৌশলী ইমরান হাসান অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.