বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক দলের সমাবেশে সংঘর্ষ, একজনকে ছুরিকাঘাত

বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় শহর যুবদলের এক নেতা ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছেন। তাঁর নাম মেফতা আল রশিদ ওরফে মিল্টন। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে শহরের নওয়াববাড়ি সড়কে জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহত মেফতা আল রশিদ শহর যুবদলের সদস্য।

জেলা যুবদলের একাধিক সূত্র জানায়, স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার বিকেলে শহরের নওয়াববাড়ি সড়কের দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও পৌর মেয়র রেজাউল করিম ওরফে বাদশা।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যের পর আর কাউকে বক্তব্য দিতে না দিয়ে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাজেদুর রহমান সভাপতি হিসেবে দীর্ঘ বক্তব্য দিতে শুরু করেন। এতে মাজেদুর রহমানের বিরোধী নেতা–কর্মীরা হট্টগোল শুরু করেন। একপর্যায়ে মাজেদুরকে ধাক্কা দিলে দুই পক্ষের নেতা–কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় মাজেদুরের সমর্থকেরা যুবদল নেতা মেফতা আল রশিদকে ছুরিকাঘাত করেন।

মেফতা আল রশিদ স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক সরকার মকুল গ্রুপের অনুসারী। তাঁকে বগুড়া ডায়াবেটিক হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। মেফতা আল রশিদ অভিযোগ করেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মাজেদুর রহমানের সমর্থকেরা তাঁকে ছুরিকাঘাত করেছেন।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক সরকার মুকুল বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নেতা–কর্মীদের ওপর এ হামলা মাজেদুরের পূর্বপরিকল্পনার অংশ। তিনি মারামারি করতে বহিরাগত ক্যাডার সঙ্গে নিয়ে দলীয় কর্মসূচিতে এসেছেন।

সভাপতির বক্তব্য দেওয়ার সময় কোনো কারণ ছাড়াই তাঁকে আঘাত করা হয়েছে দাবি করে বগুড়া জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাজেদুর রহমান বলেন, ‘কর্মসূচি শেষে আমি সমাবেশস্থল ত্যাগ করি। কারও ওপর হামলা বা ছুরিকাঘাত করার বিষয়টি আমার জানা নেই।’

জানতে চাইলে বগুড়া সদর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক শাহিনুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের অনুষ্ঠানে নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন ছুরিকাহত হয়েছেন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.